Home মূল কাগজ আপন আবাস এক টুকরো ছাদ এক মুঠো শান্তি

এক টুকরো ছাদ এক মুঠো শান্তি

0 1481

অ্যাপার্টমেন্ট ভবনের বাসিন্দাদের অন্যতম সুখের অথবা বিড়ম্বনার নাম ছাদ! যারা ভবনের ছাদ ব্যবহারের সুযোগ পান তারা খুশি, যারা পান না তারা হা-হুতাশ করেন। নিজস্ব বাড়ি থাকলে হিসাবটা আলাদা। কিন্তু বহুতল ভবনের ফ্ল্যাটগুলো যদি হয় ভিন্ন মালিকানার?

ঢাকাসহ বড় শহরগুলোতে প্রায় গায়ে-গা-লাগোয়া ভবন। নিজের ফ্ল্যাটে থেকেও অনেকের পক্ষেই মুক্ত-বাতাস পাওয়া বা আকাশ দেখার সুযোগ হয় না। এক্ষেত্রে ছাদে যাওয়ার আকুতি মনে ঘুরপাক খেতেই পারে। যৌথ মালিকানার ভবনের ক্ষেত্রে ছাদ ব্যবহার নিয়ে কিছুটা জটিলতা দেখা দিতে পারে। তাই কিছু বিষয় মাথায় রাখা জরুরি। আবার কিছু নিয়ম করে নিলে ভবনের সব ফ্ল্যাটের বাসিন্দাদের জন্যই তা ভালো হতে পারে। রাজধানীর আদাবর লিঙ্ক রোডের একটি বাড়ির ফ্ল্যাটমালিক সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ মারুফ খানের পরামর্শ অনুযায়ী এবারের আদব-কেতা।

  • ভবনের ছাদ যৌথ অধিকারে থাকলে প্রতি ফ্ল্যাটের বাসিন্দাদের ব্যবহারের জন্য নির্দিষ্ট জায়গা চিহ্নিত করে নেওয়া যেতে পারে। যেখানে নির্দিষ্ট পরিবারগুলো রোদে কাপড় শুকানো থেকে শুরু করে বাগান করা বা বসার ব্যবস্থা করে নিতে পারে।
  • ছাদে অনেকেই গাছ লাগান। বিশেষ করে টবে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ লাগানো হয়। এমনকি আজকাল ছাদে বাগানও করা হচ্ছে। ছাদে উঠলে অন্যের গাছ যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখা উচিত। ইচ্ছাকৃত অন্যের গাছ বা বাগানের ক্ষতি করা ভীষণ অন্যায়ের কাজ।
  • বাগানে অন্য ফ্ল্যাটের কেউ কাপড় শুকাতে দিলে তাতে হাত না-দেওয়া বুদ্ধিমানের কাজ। অন্য কোনো ফ্ল্যাটের বাসিন্দাদের কাপড়ে হাত-মুখ মোছার মতো জঘন্য কাজটি করা একদমই ঠিক নয়।
  • শৃঙ্খলার স্বার্থে যদি গার্ড বা অন্য কারও কাছে ছাদের দরজার চাবি থাকে, তবে তা অনুমতি নিয়ে নিজের কাছে নেওয়া এবং ছাদের কাজ শেষ হলে নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা জায়গায় ফেরত দেওয়া উচিত।
  • উৎসব-আয়োজন ছাড়াও বিভিন্ন ছোটখাটো অনুষ্ঠান ছাদে করতে দেখা যায়। এক্ষেত্রে ভবনের সব ফ্ল্যাটের মালিক বা বাসিন্দাদের সম্মতি নেওয়া ভালো। অপরের অসুবিধা হয় এমন মাত্রার শব্দদূষণ যেন না হয়, সে ব্যাপরে সতর্ক থাকুন।
  • ইভটিজিং একটি জঘন্য মানসিকতা। ছাদে হাঁটা-চলা বা আড্ডা দেওয়ার সময় বিষয়টি মাথায় রাখুন। আপনার আচরণে অন্য ফ্ল্যাটের কোনো নারী বাসিন্দাকে যেন অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে পড়তে না হয়।
  • ছাদের বাগানে বা টবে কারও ফুল/ফলের গাছ থাকলে অনুমতি ছাড়া কোনো ফুল/ফল তুলবেন না। ফলে না থাকুক, ফুলের প্রতি বেশিরভাগ মানুষেরই কিন্তু দুর্বলতা আছে!
  • ছাদ একটা, ফ্ল্যাট অনেক। তাই বলে নিজে একটু দায়িত্ব নিলে অসুবিধা কোথায়! ছাদ পরিষ্কার রাখার জন্য পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের ওপর নির্ভর না করে নিজে সচেতন হোন। ময়লা-আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলুন। ছাদের কোথাও পানি বা শ্যাওলা জমতে দিলে তা কঠিন বিপদের কারণ হতে পারে।
  • ছাদের কিনার বা রেলিংয়ে নিজে বসা থেকে বিরত থাকুন। ছাদে কোনো ছোট শিশু থাকলে তার দিকেও নজর রাখুন। শিশুটি যে ফ্ল্যাটের বাসিন্দাই হোক না কেন, তাদের ছাদ ব্যবহারে সচেতন ও সতর্ক করুন।
  • ছাদ থেকে কখনোই নিচে থুথু, পানি, ময়লা বা অন্য কোনো ভারী বস্তু দুষ্টুমি করেও নিচে ফেলবেন না। এতে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।
  • একটুখানি ছাদ হতে পারে একমুঠো শান্তির স্থান। তাই একে সঠিকভাবে ব্যবহারে সচেষ্ট হোন। বয়স্ক বা শিশুরা ছাদে উঠলে তাদের হাঁটাচলায় সহযোগিতা করার চেষ্টা করুন।

সোহরাব শান্ত

NO COMMENTS

Leave a Reply