Home মূল কাগজ বিশেষ রচনা রাজধানীর সিদ্দিকবাজার: শত কোটি টাকার স্যানিটারি বাজার

রাজধানীর সিদ্দিকবাজার: শত কোটি টাকার স্যানিটারি বাজার

0 5494

দেশের বৃহত্তম পাইকারি স্যানিটারি মার্কেট ঢাকার সিদ্দিকবাজার বা আলুবাজারে। এখানে সপ্তাহে শত কোটি টাকার স্যানিটারি সামগ্রী কেনা-বেচা হয়। বিক্রিতে শীর্ষে আছে দেশীয় বাথরুম ফিটিংস।

এসব বাথরুম ফিটিংস সামগ্রী হচ্ছে কনসিল স্টপ কক, অ্যাঙ্গেল স্টপ কক, কনসিল বিভ কক (মিডিয়াম), কনসিল বিভ কক (হেভি), টু-ইন-ওয়ান বিভ কক, বেসিন মিক্সার, সিঙ্ক মিক্সার, মুভিং পিলার কক।

সিদ্দিকবাজারের মোর্শেদ স্যানিটারির মালিক মো. মনসুর আলম জানান, বর্তমানে দেশীয় সামগ্রী গুণগত মানের বিবেচনায় দাম সহনীয় পর্যায়ে থাকায় এর ক্রেতা-চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। আর দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলোও এ-বিষয়টি মাথায় রেখে তাদের পণ্য তৈরি করছে। এ কারণে একচেটিয়া বাজার তৈরি হচ্ছে দেশীয় সামগ্রীর।

হাজী ওসমান গনি রোডের মার্স করপোরেশনের বিক্রেতা বাবুল জানান, গুণগত মানের দিক থেকে দেশীয় বাথরুম ফিটিংস বিদেশি পণ্যের চেয়ে কোনো অংশে কম নয়। এমনকি নান্দনিকতা ও ফিনিশিংয়ে আলাদা বৈশিষ্ট্য নিয়ে এসব সামগ্রী এখন বাজারে আসছে। এছাড়া চাহিদার তুলনায় বাজারে এসব সামগ্রীর সরবরাহও প্রচুর। যে কারণে দাম ক্রেতাদের ক্রয়সীমার মধ্যে থাকছে।

একই রোডের সোমেল ফিল্টারের বিক্রয়কর্মীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, অর্ডার পেলে সব কোম্পানির পণ্যই ক্রেতাদের সরবরাহ করে থাকেন। পণ্যের দামের ওপর শতকরা ১৪ থেকে ১৫ ভাগ কমিশন পেয়ে থাকেন তারা। আবার কোনো কোনো কোম্পানির ক্ষেত্রে এর পরিমাণ হয় আরও বেশি। মূলত এ কারণেই এখানকার অধিকাংশ ব্যবসায়ী দেশীয় বাথরুম ফিটিংসসামগ্রী বিক্রিতে বেশি আগ্রহী।

বাংলাদেশ পাইপ অ্যান্ড টিউবওয়েল মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন সূত্রে জানা গেছে, এটি মূলত স্যানিটারি সামগ্রীর একটি পাইকারি বাজার। জেলা পর্যায়ের স্যানিটারি ব্যবসায়ীদের কাছে এ বাজারটির ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। জেলার স্যানিটারি ব্যবসায়ীরা এ বাজারের মূল ক্রেতা। এখানে প্রতি সপ্তাহে ১০০ কোটি টাকার বেশি স্যানিটারি সামগ্রী বিক্রি হয়।

আরও জানা গেছে, সারাদেশের স্যানিটারি সামগ্রীর চাহিদার শতকরা ৬০ ভাগ এ বাজার সরবরাহ করে থাকে। বর্তমানে দেশীয় কোম্পানির বাথরুম ফিটিংস সামগ্রীর মধ্যে নাজমা, শরীফ মেটাল, শাহনূর, শাহীদুল ও মাহির পণ্য বেশ চলছে।

বর্তমানে সিদ্দিকবাজারে স্যানিটারি সামগ্রীর দোকান আছে ২ হাজারেরও বেশি। এসব দোকানের মধ্যে মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য ১ হাজারের ওপরে। মার্কেটটি শুক্রবার সাপ্তাহিক বন্ধ এবং শনিবার আধাবেলা খোলা থাকে।

জগলুল হায়দার

NO COMMENTS

Leave a Reply